‘আগরতলার জন্য নবরত্ন’, ৯ প্রতিশ্রুতি, ইস্তেহার প্রকাশ তৃণমূলের

0

পুরভোটে জিতলে আগরতলা (Agartala) শহরে খোলনোলচে বদলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিল তৃণমূল (TMC)। নাগরিক পরিষেবার উন্নয়ন থেকে মহিলাদের নিরাপত্তা, পুরকরে ছাড় থেকে মেয়রের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগের ব্যবস্থা করার মতো ন’টি প্রতিশ্রুতি দিল ঘাসফুল শিবির। আর তাই তাঁদের প্রকাশিত ইস্তেহারেরর নাম রেখেছেন ‘আগরতলার জন্য নবরত্ন’। কী কী প্রতিশ্রুতি দিল তৃণমূল?

‘আগরতলার জন্য নবরত্ন’, ৯ প্রতিশ্রুতি, ইস্তেহার প্রকাশ তৃণমূলের

Read More-তিন দিনের সফরে দিল্লি যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বৈঠক হতে পারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে

চলতি মাসের শেষেই আগরতলায় পুরভোট (Agartala Civic Poll। তার আগে মঙ্গলবার ইস্তেহার প্রকাশ করল তৃণমূল নেতৃত্ব। সাংবাদিক বৈঠকে হাজির ছিলেন সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়, সাংসদ সুস্মিতা দেব, প্রাক্তন সাংসদ অর্পিতা ঘোষ, বাংলার মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, বিধায়ক জুন মালিয়া, বিধায়ক সোহম চক্রবর্তী এবং ত্রিপুরার স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য সুবল ভৌমিক। প্রকাশিত ইস্তেহারে নারী সুরক্ষায় জোর দিয়ে পিঙ্ক অটো বা ট্যাক্সি নামানোর কথা বলা হয়েছে। রয়েছে কলকাতার ‘টক টু মেয়র’-এর মতো ‘হ্যালো মেয়র’ পরিষেবা। এমনকী, জলকরে ছাড় দেওয়ার কথা বলেছে তৃণমূল।

  • প্রথম প্রতিশ্রুতি ‘উন্নত নগর, উন্নত সমাজ’। এর মধ্যে রয়েছে খানাখন্দহীন রাস্তা, বিনামূল্যে ওয়াইফাই, বায়ো টয়লেট, ভূগর্ভস্থ কেবলিং, বৈদ্যুতিক চুল্লি তৈরির প্রতিশ্রুতি।
  • দ্বিতীয় প্রতিশ্রুতি রয়েছে ‘নিশ্চিত সুরক্ষা, নিশ্চিন্ত আমরা’। সেখানে বলা হয়েছে, মহিলাদের সুরক্ষা দিতে পথে নামবে পিঙ্ক অটো বা ট্যাক্সি। যা সম্পূর্ণভাবে মহিলা পরিচালিত। এই ধরনের গাড়ি রাস্তায় নামাতে ব্যয় বহন করবে পুরসভা। এছাড়া, রাস্তায় ৩০০ মিটার অন্তর বসানো হবে আলো। থাকবে কলকাতার রাস্তার মতো উচ্চবাতিস্তম্ভ। সিসিটিভিতে মুড়ে ফেলা হবে গোটা শহর।
  • তৃতীয় প্রতিশ্রুতি, ‘পরিচ্ছন্ন আগরতলা, নির্মল ত্রিপুরা’। শহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে একাধিক উদ্যোগ নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে ইস্তেহারে।
  • চতুর্থ প্রতিশ্রুতি, ‘জন অভিযোগ নিষ্পত্তি’ করতে পাঁচ ওয়ার্ডে বিশেষ কেন্দ্র তৈরি করা হবে। মেয়রের সঙ্গে কথা বলতে থাকবে বিশেষ মোবাইল নম্বর। সরাসরি মেয়রকে জানানো যাবে অভিযোগ।
  • পঞ্চম প্রতিশ্রুতি ‘সুস্বাস্থ্যর আশ্বাস’। ডেঙ্গু-ম্যালেরিয়াবিহীন আগরতলা উপহার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তৃণমূল।
  • ষষ্ঠ প্রতিশ্রুতি, তৃণমূল আগরতলা পুরসভা দখল করলে বাসিন্দাদের আর জলকর দিতে হবে না। শর্তসাপেক্ষে সম্পত্তি কর ২০ শতাংশ কমানো হবে।
  • সপ্তম প্রতিশ্রুতিতে বলা হয়েছে, আগরতলায় তৈরি হবে ওয়াটার এটিএম।
  • অষ্টম প্রতিশ্রুতি, সামাজিক উন্নয়নের জন্য হকারদের বিশেষ ব্যবস্থা করা হবে।
  • নবম প্রতিশ্রুতি পুরকর্মীদের জন্য বিশেষ ভাতার ব্যবস্থা থাকবে বলেও জানিয়েছে তৃণমূল।

 

Previous articleতিন দিনের সফরে দিল্লি যাচ্ছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা, বৈঠক হতে পারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে
Next articleপ্রকাশ্যে আমিষ বিক্রি বন্ধ, ‌রুটিরুজি হারিয়ে বিপন্ন আহমেদাবাদের ব্যবসায়ীরা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here