আজ থেকে খুলছে পশ্চিমবঙ্গের সরকারি ও বেসরকারি স্কুলগুলি, মানতে হবে একাধিক বিধিনিষেধ

0

দীর্ঘ ১১ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে আজ, শুক্রবার থেকে খুলছে পশ্চিমবঙ্গের সরকারি ও বেসরকারি স্কুলগুলি। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘‌আজ থেকেই স্কুলগুলি খুলে যাচ্ছে। আপাতত নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের নিয়ে শুরু হচ্ছে পঠন–পাঠন। ধাপে ধাপে অন্য শ্রেণির পড়ুয়াদের ক্লাস শুরু হবে।’‌

পশ্চিমবঙ্গে প্রায় ৩৬ হাজার সরকারি ও সরকার পোষিত মাধ্যমিক স্কুল, প্রায় ১৪ হাজার উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল এবং ৬৩৬টি মাদ্রাসা রয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশ স্কুলেই সরস্বতী পুজো হবে ১৬ ফেব্রুয়ারি। তবে করোনা পরিস্থিতিতে স্কুল করতে একাধিক বিধিনিষেধ মানতে হবে। এ সংক্রান্ত ৫০ পাতার একটি নির্দেশিকাও জারি করেছে রাজ্য সরকার।

শিক্ষা দফতরের ওই আধিকারিক আরও জানান, ‘রাজ্যের প্রতিটি স্কুলে ওই নির্দেশিকা পাঠানো হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে কী করতে হবে এবং কী করা উচিত নয় তা বলা রয়েছে ওই নির্দেশিকায়। সংক্রমণ রুখতে শিক্ষক–শিক্ষিকা, অভিভাবক ও ছাত্রছাত্রীদের কী ভূমিকা নেওয়া উচিত সে ব্যাপারেও বিস্তারিত জানানো হয়েছে। স্কুল শুরুর আগে এবং স্কুল চলাকালীন কী কী প্রস্তুতি নিতে হবে সেটাও বলা হয়েছে নির্দেশিকায়।’‌

নির্দেশিকায় বলা রয়েছে— স্কুল চলাকালীন শিক্ষক–শিক্ষিকা, ছাত্রছাত্রী, শিক্ষাকর্মী— সকলকেই মাস্ক পরতে হবে, স্যানিটাইজার ব্যবহারের পাশাপাশি বজায় রাখতে হবে সামাজিক দূরত্ববিধি। প্রতিটি স্কুলে একটি পৃথক আইসোলেশন রুম রাখার ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে। কোনও পড়ুয়া অসুস্থ হলে বা তার মধ্যে করোনা সংক্রমণের উপসর্গ দেখা দিলে সেখানে রাখা হবে তাঁকে।

আরও বলা হয়েছে, নিয়ম করে কিছু সময়ের ব্যবধানে গোটা স্কুল স্যানিটাইজ করতে হবে। ছাত্রছাত্রীদের নিজেদের মধ্যে বই বা টিফিন ভাগ করার ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। একসঙ্গে জড়ো হয়ে প্রার্থনা করা যাবে না। প্রতিটি ক্লাসে আলাদা করে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া বা প্রার্থনা করার কথা বলা হয়েছে নির্দেশিকায়। পাশাপাশি জানানো হয়েছে, ছাত্রছাত্রীদের ওপর সবসময় নজর রাখতে হবে স্কুল কর্তৃপক্ষকে।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here