আলোচনার মাধ্যমে কৃষি বিক্ষোভ মিটিয়ে নিতে ভারতকে পরামর্শ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইডেন প্রশাসনের

0

এবার প্রথমবারের জন্য নিজেদের অভিমত প্রকাশ করল নব নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইডেন প্রশাসন। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা মিটিয়ে নিতে পরামর্শ দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। এর আগে ট্রাম্প প্রশাসনের তরফ থেকে মূলত অভ্যন্তরীণ ইস্যু বলেই বিভিন্ন বিতর্কিত বিষয়ে পাশ কাটিয়ে যাওয়া হত। সিএএ হোক বা ৩৭০ ধারার অবলুপ্তি, সরাসরি পরামর্শ দেওয়ার পথে যায়নি আমেরিকা। কিন্তু ডেমোক্র্যাটিক দলের সরকার যে ঠিক সে পথে নাও যেতে পারে, প্রথম বিতর্কই মুখ খুলে সেটা স্পষ্ট করে দিলেন বাইডেনের মুখপাত্র।

মার্কিন বিদেশদফতরের মুখপাত্রকে এই নিয়ে প্রশ্ন করা হয়। তিনি বলেন যে প্রাঞ্জল গণতন্ত্রে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের সর্বদা জায়গা আছে ও সেই কথা ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টও বলেছে। আলোচনার মাধ্যমে বিভেদ মিটিয়ে ফেলা উচিত বলে জানান মুখপাত্র।এমন ভাবে বিবৃতি দেওয়া হয়েছে যাতে এটা স্পষ্ট যে আমেরিকা চায় না এমন মনে করা হোক যে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে তারা নাক গলাচ্ছে। কারণ ইতিমধ্যেই রিহানা, গ্রেটা প্রভৃতির টুইট নিয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া ব্য়ক্ত করেছে ভারতের বিদেশমন্ত্রক। মার্কিন উপরাষ্ট্রপতি কমলা হ্যারিসের ভাগ্নী মিনা হ্যারিসও ভারতীয় সরকারের নেওয়া পদক্ষেপের বিরুদ্ধে টুইট করে চলেছেন। এমনকী বিদেশমন্ত্রকের টুইটের জবাবেও তিনি বলেছেন যে গণতন্ত্র ও মানবাধিকার রক্ষার্থে তিনি কথা বলেই যাবেন।

তবে ভারতের কৃষি সংস্কারকে যে আমেরিকা সমর্থন করছে সেটাও স্টেট ডিপার্টমেন্ট জানিয়েছে। তারা বলেছে যে ভারতীয় বাজারের সংস্কার ও বেসরকারি লগ্নি আসার প্রক্রিয়াকে তারা স্বাগত জানায়। তবে বিভিন্ন স্থানে কৃষি বিক্ষোভের জেরে যে ইন্টারনেট সংযোগ ছিন্ন করা হয়েছে তার নিন্দা করা হয়েছে। ইন্টারনেট থাকা বাকস্বাধীনতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ও গণতন্ত্রের প্রতীক বলে জানানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here