করোনা সংক্রমণ কমাতে কেরল ও মহারাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী আট জেলায় শনি-রবিবার কার্ফু

0

করোনা সংক্রমণ কমাতেকেরল ও মহারাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী আটটি জেলায় সপ্তাহের শেষ দু’দিন কার্ফু জারি করল কর্নাটক সরকার। মহারাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী জেলা বেলাগাভি, বিদার, বিজয়পুরা এবং কালবুর্গি এবং কেরলের সীমান্তবর্তী জেলা দক্ষিণ কন্নড়, কোদাগু, মাইসুরু এবং চামরাজনগর জেলায় শুক্রবার রাত ন’টা থেকে সোমবার ভোর পাঁচটা পর্যন্ত কার্ফু জারি থাকবে। শুক্রবার কর্নাটক সরকার জানিয়েছে, বিশেষ জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ কার্ফুর সময় বেরোতে পারবেন না।

করোনা সংক্রমণ কমাতে কেরল ও মহারাষ্ট্রের সীমান্তবর্তী আট জেলায় শনি-রবিবার কার্ফু

Read More- ‘অতিমারীর সময়ে একেবারে প্রথম দিন থেকে দরিদ্রদের অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে’: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

শুক্রবার কর্নাটক সরকার জানিয়েছে, ওই আট জেলা বাদে রাজ্যের সর্বত্র রাত ন’টা থেকে ভোর পাঁচটা পর্যন্ত জারি থাকবে নাইট কার্ফু। সেখানে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের দোকান এবং রেশন দোকান খোলা থাকবে ভোর পাঁচটা থেকে দুপুর দু’টো পর্যন্ত। রেস্তোরাঁগুলি ২৪ ঘণ্টাই হোম ডেলিভারি দিতে পারবে। পাব এবং বার খোলা যাবে না। কিন্তু মদের দোকান খোলা থাকবে ভোর পাঁচটা থেকে দুপুর দু’টো পর্যন্ত। ট্রেন ও বিমান চালু থাকবে। চলবে বাসও। বিবাহ বা অন্যান্য পারিবারিক অনুষ্ঠানে সর্বাধিক ১০০ জন উপস্থিত হতে পারবেন। তাঁদের মানতে হবে কোভিড বিধি। শেষকৃত্যে উপস্থিত থাকতে পারবেন সর্বাধিক ২০ জন। সবরকম রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে। শনিবার জানা যায়, জনসন অ্যান্ড জনসনের সিঙ্গল শট ভ্যাকসিনকে ভারতে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্রীয় ড্রাগ কন্ট্রোল। ওই সংস্থার ভ্যাকসিন ইতিমধ্যে দেওয়া শুরু হয়েছে আমেরিকায়। অবশেষ ভারতেও এই ভ্যাকসিন অনুমোদন পেল। সংস্থার অধীনস্থ জানসেন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি এই ভ্যাকসিন তৈরি করেছে। বহু মানুষকে কম সময়ে টিকার ডোজ দেওয়ার জন্যই এই সিঙ্গল শট ভ্যাকসিন বানানো হয়েছে। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে মার্কিন ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)এই টিকার ট্রায়ালে ছাড়পত্র দেয়। আমেরিকায় জনসনের ভ্যাকসিন ছাড়পত্র পাওয়ার পরে দেশেও এই ভ্যাকসিন নিয়ে আসার জন্য কথাবার্তা শুরু হয়।

ভারতে এখন সার্বিকভাবে সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড ও ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনই দেওয়া হচ্ছে। তৃতীয় টিকা হিসেবে রাশিয়ার স্পুটনিক ভি-কে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। তবে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা যেভাবে বেড়ে চলেছে তাতে টিকাকরণে গতি আনার জন্য একাধিক বিদেশি ভ্যাকসিনকেও সবুজ সঙ্কেত দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভারতে টিকার ট্রায়াল শুরু করার জন্য কেন্দ্রীয় ড্রাগ নিয়ামক সংস্থার অধীনস্থ সাবজেক্ট এক্সপার্ট কমিটির কথাবার্তা বলছিল জনসন অ্যান্ড জনসন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য টুইট করে বলেছেন, জরুরি ভিত্তিতে জনসনের সিঙ্গল শট ভ্যাকসিনকে ছাড়পত্র দেওয়া হল, যা দেশের কোভিড লড়াইয়ে আরও একটা পদক্ষেপ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here