কলকাতায় জামতাড়া গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে তল্লাশি অভিযান, প্রচুর মোবাইল, সিম, ল্যাপটপ-সহ গ্রেফতার ১৬

0

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শুরু হয়েছে কলকাতা জুড়ে জামতাড়া গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে তল্লাশি অভিযান।অত্যাধুনিক প্রযুক্তিকে হাতিয়ার করে, নানা ধরনের প্রতারণা চক্র চালায় তারা। মুলত মোবাইল এবং সিম কার্ডকে অস্ত্র বানিয়ে চুলে এঁদের কাজ। বর্তমানে দেশে বিভিন্ন রাজ্যে এঁদের জ্জাল ছড়িয়ে পড়েছে। কলকাতা শহরও এর ব্যতিক্রম নয়।

কলকাতায় জামতাড়া গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে তল্লাশি অভিযান, প্রচুর মোবাইল, সিম, ল্যাপটপ-সহ গ্রেফতার ১৬

Read More-Bihar Police Constable Arrested: সোশ্যাল মিডিয়ায় মহিলা সহকর্মীর অর্ধনগ্ন ছবি আপলোড, গ্রেপ্তার পুলিশ কনস্টেবল

এবার সেই রকমই এক চক্রের হদিশ মিলল কলকাতা শহরের বুকে। বুধবার রাতে শহরের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালিয়ে ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এঁদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে একাধিক মোবাইল, সিম কার্ড। জনা গিয়েছে, এরা বেশিরভাগই ঝাড়খণ্ডের বাসিন্দা। পুলিশের অনুমান শহরের কোণায় কোণায় এই চক্রের জাল ছড়িয়ে পড়েছে। তাই তল্লাশি চলবে।

সম্প্রতি সাধারণ মানুষের কাছে এমন কিছু ফোন আসছিল, যার মাধ্যমে গোপন তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে প্রতারকরা। তারা বিভিন্ন ধরনের তথ্য জানার চেষ্টা করছে বলেই খবর। কখনও ব্যাঙ্কের ম্যানেজার সেজে কেউ ফোন করে বলে এটিএম কার্ডের নম্বর দেওয়ার জন্য। কেউ আবার গুগল পে বা পেটিএমের মতো ডিজিটাল মাধ্যমের তথ্য হাতিয়ে নেয়। এ ভাবেই লক্ষ লক্ষ টাকার আর্থিক প্রতারণার ঘটছে প্রতিনিয়ত। কলকাতা পুলিশের কাছে গত কয়েক মাসে এই ধরনের অভিযোগের সংখ্যা বেড়েছে অনেকটাই। আর তার জন্যই বুধবার রাতে এই তল্লাশি চালায় কলকাতা পুলিশের একটি দল।

কলকাতা পুলিশের পক্ষ জানানো হয়েছে, গতকাল রাতে কেষ্টপুর, শাপুরজি, কসবা, এবং দশদ্রোণে হানা দিয়ে মোট ১৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়। মুলত ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর ও ফোন নম্বর যোগাড় করা, এটিএম কার্ডের মাধ্যমে টাকা তোলা, এবং অসদুপায়ে কেনা মালের ডেলিভারি নেওয়া, এই ছিল এদের কারবার। ধৃতদের কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের ১৮৮টি ডেবিট কার্ড, ৭৮টি মোবাইল ফোন এবং ছ’টি ল্যাপটপ। তদন্তকারী দলে ছিলেন সাব ইন্সপেক্টর জিতেন্দ্র প্রসাদ, সাব ইন্সপেক্টর গৌতম লামা, সাব ইন্সপেক্টর অমিত সিং, এবং গোয়েন্দা বিভাগের ব্যাঙ্ক জালিয়াতি দমন শাখার অফিসাররা।

গোপন সূত্রে পাওয়া খবরের ভিত্তিতে শহরের বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশহি চালানো হয়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শহরের বিভিন্ন জায়গায় বাড়ি ভাড়া নিয়ে এই সব কাজ চলত। পুলিশ জানিয়েছে, কলকাতা শহরে বহু মানুষের বাস। তাই এখানে সাধারণ মানুষকে নিশানা করতে, অনেকটাই সুবিধা হত প্রতারকদের। তাই তারা এই শহরকে নির্বাচন করেছিল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, শুধুমাত্র কলকাতা শহরই নয়, রাজধানী দিল্লি থেকেই এই জামতারা গ্যাং-এর বেশ কয়েকজনকে সম্প্রতি গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবারই জামতারা গ্যাং-এর ১৪ জন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশ। এরা সবাই জামতারা, গিরিডি, জামুই এলাকায় প্রতারণা চক্রের সঙ্গে জড়িত। সাইবার প্রহার নামে এক অভিযানে ওই চক্রের পাণ্ডাদের হাতেনাতে ধরেছে দিল্লি পুলিশ। সাইবার প্রতারণা এদের কারণেই ক্রমশ বেড়ে চলেছিল দিল্লিতে। এমনটাই জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ। তাই এই অভিযান শুরু করে তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here