কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুললেও পরীক্ষা হবে অনলাইনেই, জানাল বিকাশ ভবন

0

প্রায় দু বছর ধরে অনলাইনে ক্লাস হয়েছে পড়ুয়াদের। স্কুল ও কলেজ খুলেছে সদ্য। তবে পরীক্ষা নেওয়ার ক্ষেত্রে অনলাইন পদ্ধতিকেই বেছে নিচ্ছে শিক্ষা দফতর। আজ বিকাশ ভবনের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে, চলতি সেমিস্টারের পরীক্ষা নেওয়া হবে অনলাইনে। রাজ্যের সব কলেজ, বিশ্ব বিদ্যালয়, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের জন্য এই নির্দেশিকা দেওয়া হয়েছে।

কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুললেও পরীক্ষা হবে অনলাইনেই, জানাল বিকাশ ভবন

read more-ইস্তেহার নয়, পুরভোটের আগে আগামী পাঁচ বছরে কলকাতার উন্নয়নের রূপরেখা প্রকাশ করতে চলেছে তৃণমূল

যেহেতু, এই সেমেস্টারের বেশির ভাগ ক্লাসই অনলাইনে হয়েছে, তাই পরীক্ষাও নেওয়া হবে অনলাইনে। এমনটাই জানানো হয়েছে বিকাশ ভবনের তরফে। তবে, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় আগেই অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একটু অন্যরকম ভাবছে যাদবপুর, যাদের অফলাইনে সেমিস্টার শুরু হয়েছে তাদের পরীক্ষা অফলাইনে নিতে চাইছে যাদবপুর।

রাজ্য সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী, ১৬ নভেম্বর থেকে খুলেছে রাজ্যের স্কুল ও কলেজ। তবে, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় (Calcutta University) ও যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে (Jadavpur University), দুই বিশ্ববিদ্যালয়েই আপাতত নতুন পড়ুয়াদের জন্য দরজা খোলেনি।

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে, প্রথম সেমিস্টারের ক্লাস অফলাইনে হবে না। আপাতত অনলাইনেই পঠন-পাঠন চলবে তাদের। ১৬ নভেম্বর থেকেই অফলাইন পঠন পাঠন শুরু হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ে। তৃতীয় সেমিস্টারের পড়ুয়ারা ক্যাম্পাসে এসে ক্লাস করছে। বড় বিভাগ অর্থাত্‍ যে বিভাগে পড়ুয়া সংখ্য়া বেশি সে ক্ষেত্রে অফলাইনের পাশাপাশি অনলাইনেও ক্লাস চলছে। আর যাদের পড়ুয়া সংখ্য়া কম, তাদের প্রত্যেককেই কলেজে আসতে হচ্ছে। জমায়েত এড়াতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রাকটিক্যাল ক্লাস সব চলছে অফলাইনে।

যাদবপুরের ক্ষেত্রেও নতুন পড়ুয়ারা আপাতত কলেজে যেতে পারছেন না। বিজ্ঞান বিভাগের ক্ষেত্রে, স্নাতকোত্তরের প্রথম বর্ষের ছাত্র ও ছাত্রীরা ও স্নাতক স্তরের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র-ছাত্রীরা অফলাইনে ক্লাস করছে। তারাই শুধু ক্যাম্পাসে আসছে। স্নাতকোত্তর দ্বিতীয় বর্ষে কারা আসবে, আর কারা আসবে না, সেটা ঠিক করে দিচ্ছে সংশ্লিষ্ট বিভাগ। তবে আপাতত কোথাও প্রথম বর্ষের পড়ুয়ারা কলেজে আসছে না।

কলা বিভাগের ক্ষেত্রে স্নাতক স্তরের একটি বর্ষ ও স্নাতকোত্তর একটি বর্ষের পড়ুয়ারা অফলাইন ক্লাস করছে অর্থাত্‍ কলেজে আসছে। ইঞ্জিনিয়ারিং-এর ক্ষেত্রে স্নাতকোত্তরের প্রথম বর্ষের পড়ুয়ারা ক্যাম্পাসে আসছে। পিএইচডি ও এমফিলের সবাই ক্যাম্পাসে আসছে। অফলাইন এর পাশাপাশি সব বর্ষের জন্যই অনলাইন ক্লাস চালু রয়েছে।

Previous articleইস্তেহার নয়, পুরভোটের আগে আগামী পাঁচ বছরে কলকাতার উন্নয়নের রূপরেখা প্রকাশ করতে চলেছে তৃণমূল
Next articleওমিক্রন আতঙ্কে মুম্বইয়ে আজ ও কাল জারি ১৪৪ ধারা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here