চাকদহে কারখানা তৈরিতে বাধা পেয়ে শিল্পপতি দ্বারস্থ হলেন মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের

0

চাকদহ থানার শিমুরালি নরপতি পাড়ায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে একটি অত্যাধুনিক ফুড প্রসেসিং ইউনিট গড়ে তুলতে চান অরুণকুমার মাইতি নামে এক শিল্পপতি। এর জন্য ওই এলাকায় ২০১৭ সালে ৪৭ বিঘা জমি কিনেছিলেন তিনি। বর্তমানে সেই জমির উপরে ফুড প্রসেসিং এবং প্রিজারভেটিভ শিল্পকে গড়ে তুলতে চাইছেন তিনি। গত বছরের গোড়ার দিকে কারখানার শেড বানিয়ে তাতে মাটি ফেলে উপযুক্ত পরিকাঠামো তৈরি করেছিলেন। তারপরে করোনার কারণে কাজ বন্ধ রেখেছিলেন। দীর্ঘ ১০ মাস পরে কারখানায় আসেন। তাঁর অভিযোগ,এই ক’মাসের মধ্যে কারখানার মাটি সহ বেশ কিছু জিনিসপত্র চুরি হয়ে যায়। আরও অভিযোগ, জমির উপর দিয়ে ড্রেন কেটে দেয় বেশ কিছু দুষ্কৃতী। এর প্রতিবাদ করায় কারখানা তৈরি করতে বাধা দিচ্ছেন জনা পাঁচেক দুষ্কৃতী। গত কয়েকদিন আগে এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে বসে মীমাংসা সূত্র খুঁজে বার করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু আলোচনা হলেও, পরবর্তী সময়ে ড্রেন কাটাকে কেন্দ্র করে বিবাদ তৈরি হয়। এলাকায় চলে বোমাবাজি। চাকদহ থানায় ৫ জনের নামে অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই শিল্পপতি। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের কাছেও সেই চিঠি দিয়ে দরবার করেছেন। অন্যদিকে গ্রামবাসীদের দাবি, জায়গাটির নিচু হওয়ার কারণে জল নিষ্কাশনের ব্যবস্থার জন্য ড্রেন কাটা হয়েছিল। সেই ড্রেনটি বুজিয়ে দিতে চাইছেন ওই জমির মালিক। ওই জমির মালিকের সঙ্গে আলোচনার পরেও তিনি বহিরাগত লোক এনে গন্ডগোল পাকিয়ে ইস্যু তৈরি করতে চাইছেন। চাকদায় বিধায়ক তথা ক্ষুদ্র কুটির শিল্প দফতরের প্রতিমন্ত্রী রত্না ঘোষ কর জানান, ওই জমির উপরে আগে একটি ক্যানেল তৈরি করা ছিল। যা দিয়ে প্রায় ১০০ বিঘা জমির জল বার করা হয়। তাই নিয়েই বিবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here