চিত্রকূট গণধর্ষণ কাণ্ডে যাবজ্জীবন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মন্ত্রীর

0

গণধর্ষণের (Gang Rape) দায়ে উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) প্রাক্তন মন্ত্রী গায়ত্রী প্রজাপতিকে (Gayatri Prajapati) যাবজ্জীবন কারাবাসের (Life Imprisonment) নির্দেশ দিল বিশেষ আদালত (Special Court)। ২০১৭ সালে চিত্রকূট গণধর্ষণ কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত হলেন অখিলেশ জমানার এই প্রাক্তন মন্ত্রী।

চিত্রকূট গণধর্ষণ কাণ্ডে যাবজ্জীবন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মন্ত্রীর

Read More-শীঘ্রই ট্রেনের ভাড়া কমতে চলেছে, অগ্রিম কাটা টিকিটের বাড়তি টাকা ফেরত পাবেন?

বুধবার উত্তর প্রদেশের প্রাক্তন মন্ত্রী সহ এই মামলায় অভিযুক্ত আরও দু’জন, আশিস শুক্লা এবং অশোক তিওয়ারি একই সাজা দেওয়ার ঘোষণা করেন বিশেষ আদালতের বিচারক পবন কুমার রাই। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি দোষী সাব্যস্ত হওয়া এই তিনজনকেই অনাদায়ে আরও ২ লক্ষ টাকা করে জরিমানা করেছে আদালত।

অখিলেশ যাদবের সরকারের আমলে খনি এবং পরিবহণ মন্ত্রীর দায়িত্ব সামলাতেন এই গায়ত্রী প্রজাপতি। অভিযোগ, ২০১৭ সালে মন্ত্রী থাকাকালীন চিত্রকূটে এক মহিলাকে ধর্ষণ করেন মন্ত্রী ও তাঁর ৬ সঙ্গী। মহিলার নাবালিকা মেয়েকেও যৌন হেনস্থার চেষ্টার অভিযোগ ওঠে প্রজাপতির বিরুদ্ধে। অভিযোগ, সে সময় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ নিতে চায়নি পুলিশ। এর পর সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতা।

এর পর সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশে মন্ত্রীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়। অবশেষে চার বছর পর মন্ত্রীকে গত বুধবার দোষী সাব্যস্ত করে আদালত। শুক্রবার তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করে আদালত।

সাজা ঘোষণার সময় আদালতেই হাজির ছিলেন গায়ত্রী প্রজাপতি। গায়ত্রীর দুই সহযোগী অশোক তিওয়ারি ও আশিষ শুক্লাকেও একই অপরাধের জন্য দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। প্রসিকিউশন তিনজনের বিরুদ্ধেই অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছেন।

তবে প্রমাণের অভাবে আরও চার অভিযুক্ত – বিকাশ বর্মা, রূপেশ্বর, অমরেন্দ্র সিং এবং চন্দ্রপালকে ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে আদালত। এই মামলায় মোট ১৭ জন সাক্ষীকে হাজির করেছিলেন।

এদিকে নির্যাতিতা জানিয়েছেন, ২০১৪ সালের অক্টোবর থেকে তাঁকে লাগাতার ধর্ষণ করেন গায়ত্রী প্রজাপতি এবং তাঁর সঙ্গীরা। ২০১৭ সালে মাসে তাঁর নাবালিকা মেয়েকেও যৌন হেনস্থার চেষ্টা করা হয়। এরপরই অভিযোগ দায়েরের সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

যদিও মামলা দায়ের করলেও উত্তর প্রদেশ পুলিশ গায়ত্রী প্রজাপতির বিরুদ্ধে কোনও ব‍্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ। তার পর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন নির্যাতিতা। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে গায়ত্রী প্রজাপতি সহ সমস্ত অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে গৌতমপল্লী থানায় এফআইআর দায়ের করে পুলিশ। এর পরই গ্রেফতার করা হয় গায়ত্রী প্রজাপতিকে।

Previous articleশীঘ্রই ট্রেনের ভাড়া কমতে চলেছে, অগ্রিম কাটা টিকিটের বাড়তি টাকা ফেরত পাবেন?
Next articleবাংলার মুকুটে আরও একটা পালক, স্কচ গোল্ডেন পুরস্কার পেল শিক্ষা দফতর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here