নন্দীগ্রামে ভোটে সাহায্য চেয়ে বিজেপির স্থানীয় নেতাকে ফোন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের, প্রকাশ্যে ফোনের রেকর্ডিং

0

একটি অডিও ক্লিপ, আর তাঁকে কেন্দ্র করে বিতর্ক বঙ্গ রাজনৈতিক মহলের। অডিও ক্লিপটি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ও তমলুকের বিজেপি সহ-সভাপতি প্রলয় পালের বক্তব্যের। আর এই অডিও ক্লিপ সংবাদমাধ্যমের কাছে প্রকাশ্যে এনেছেন বঙ্গ বিজেপি নেতারা। আর তাকে ঘিরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। নির্বাচনের আগে একজন বিজেপি কর্মীকে ফোন করছেন মমতা! এর থেকে বোঝায় যাচ্ছে ২ মে-এর পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিদায় নিচ্ছেন, দাবি বিজেপির।

প্রায় ৩ মিনিটের কথোপকথনে প্রলয়বাবুকে মমতা বলেন, ‘তুমি অনেক ইয়ং ছেলে। অনেক কাজ কর আমি জানি সব কিছু।তুমি একটু আমাদের হয়ে কাজ করে দাও না। সাহায্য করে দাও না। তুমি দেখবে কোনও অসুবিধে হবে না।’

এর পরই তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন প্রলয়বাবু। জানিয়ে দেন, অধিকারী পরিবারের সঙ্গে ৪০ বছরের সম্পর্ক। বিশ্বাসঘাতকতা করতে পারবেন না তিনি। পালটা মমতা বলেন, দীর্ঘদিন ওখানে জমিদারি চালাতো। আমি অত খবর রাখতাম না। এখন সব খবর রাখছি।

শেষে ফোন করার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ধন্যবাদ জানান প্রলয়বাবু। বলেন, ‘আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আপনি এত বড় নেতৃত্ব হওয়া সত্ত্বেও আপনি আমার মতো সাধারণ কর্মীকে ফোন করেছেন, আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। কিন্তু দিদি আপনাকে ক্ষমা করবেন।’

এর পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে প্রলয়বাবু বলেন, ‘সিপিএমের চরম অত্যাচারের দিনেও অধিকারী পরিবার আমাদের পাশে ছিল। তাদের সঙ্গে বেইমানি করতে পারবো না। আমি বিজেপিতে যোগদান করলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনও কথা বলিনি। আমরা বিজেপি করি দেশের জন্য প্রাণ দিতে প্রস্তুত’।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here