‘নরেন্দ্র মোদির ছবি নয়, করোনার টিকাকরণের সার্টিফিকেটে থাক জাতীয় পতাকার ছবি’: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

0

নরেন্দ্র মোদির ছবি নয়, করোনার টিকাকরণের সার্টিফিকেটে থাক জাতীয় পতাকার ছবি। এমনই দাবি তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ দিন তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসের ভার্চুয়াল সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই প্রস্তাব দেন তিনি।

‘নরেন্দ্র মোদির ছবি নয়, করোনার টিকাকরণের সার্টিফিকেটে থাক জাতীয় পতাকার ছবি’: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Read More-বৃষ্টির জেরে রেল লাইনে ধস, ব্যাহত শিয়ালদহ-বনগাঁ আপ শাখার ট্রেন পরিষেবা

এ দিন ভার্চুয়াল বক্তব্য রাখতে গিয়ে কেন্দ্রকে আক্রমণ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জিএসটি, বিপর্যয় মোকাবিলার টাকা দেয় না। খালি ছবি লাগাতে ব্যস্ত। টিকা দিয়েও তাতে নিজের ছবি লাগিয়ে দিচ্ছে। তাহলে করোনায় মৃত্যু হলেও আপনার ছবি লাগিয়ে দেওয়া উচিত! এত মানুষ মারা গেলেন, প্রত্যেকের বাড়িতে একটা করে ছবি পাঠিয়ে দিই? একটা টিকা দেওয়ার কৃতিত্ব নিতেও ছবি লাগাতে হয় কেন? এটা কী ধরনের মানসিকতা? আমাদের এখানে যখন সরকার টিকা কিনে মানুষকে দিতে শুরু করল, তখন আমাকেও ছবি লাগানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। আমি বারণ করে দিয়েছি। ছবি লাগাতে হলে জাতীয় পতাকার ছবি লাগাও। দেশে জাতীয় পতাকার থেকে বড় তো আর কেউ নয়!’

Read More-আজও রাজ্যজুড়ে বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস, কমলা সর্তকতা জারি উত্তরবঙ্গে

করোনা টিকার সার্টিফিকেটে প্রধানমন্ত্রীর ছবি নিয়ে এর আগেও সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশ্ন তুলেছিল তৃণমূল সহ বিরোধীরাও। যদিও বিরোধীদের দাবিকে গুরুত্ব দেয়নি কেন্দ্র।

Read More-কাবুল বিমানবন্দরে বিস্ফোরণের প্রত্যাঘাত করল আমেরিকা, ISIS-এর ডেরায় চলল ড্রোন অভিযান

করোনার টিকাকরণ নিয়ে শুরু থেকেই কেন্দ্রের নীতি নিয়ে সরব ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সবাইকে বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার দাবি নিয়ে একাধিকবার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠিও দিয়েছিলেন তিনি। পরে সেই দাবি মেনে নিয়েই প্রত্যেককে বিনামূল্য টিকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় সরকার। এ দিন বিজেপি-কেও তীব্র আক্রমণ করেছেন তৃণমূলনেত্রী। তিনি বলেন, ‘বিজেপি-র দুটো কাজ, গুলি চালানো আর গালিগালাজ করা। কোনও চমত্‍কার ওরা জানে না। ওরা শুধু জানে মিথ্যের পর মিথ্যে বলতে। তাই বলছি, জোট বাধুন, তৈরি হোন। মানুষের আজ স্বাধীনতা নেই।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here