‘নেংটি ইঁদুর নই, আমরা রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার’: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

0

চেতলার কর্মিসভা থেকে ঠিক এভাবেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলিকে পরিকল্পনামাফিক ব্যবহার করছেন নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ। এদিকে নাম না করে একাধিক বার শুভেন্দু অধিকারীকেও আক্রমণ করলেন মমতা। এরপরই রীতিমতো চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে মমতার মন্তব্য, ‘নেংটি ইঁদুর নই, আমরা রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার।’

‘নেংটি ইঁদুর নই, আমরা রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার’: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Read More-প্রয়াত সুইজিশ ডিজে টিম বার্গলিংয়ের জন্মদিনে Google ডুডলের বিশেষ শ্রদ্ধা

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ভবানীপুর আসনে উপনির্বাচন। নির্বাচন ঘোষণার পরদিনই তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম ঘোষণা হয় অফিসিয়ালি। শুক্রবার মনোনয়ন জমা করবেন তিনি। তার আগে বুধবার থেকে প্রচারে নেমে পড়লেন তৃণমূল নেত্রী। চেতলাতে প্রথম কর্মিসভা করলেন তিনি। আর সেই মঞ্চ থেকেই বিজেপিকে আক্রমণ শাণালেন মমতা। তিনি বলেন, ‘বিধানসভা নির্বাচনের আগেও তৃণমূলকে ধ্বংস করার চেষ্টা করা হয়েছিল। এজেন্সি-সহ সমস্ত শক্তি প্রয়োগ করা হয়েছিল। কিন্তু আমরা লড়াই করেছি ও জিতেছি। বিজেপি কোনওদিন কারও সঙ্গে রাজনৈতিক লড়াইয়ে পারেনি। কংগ্রেসের সঙ্গে পারেনি। ওদেরও এজেন্সি দেখিয়েছিল।’ কয়লা কাণ্ডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে তলব করা প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘যেই উপনির্বাচন ঘোষণা হল অভিষেক নোটিশ পেল, পার্থ চট্টোপাধ্যায় নোটিশ পেল। অকারণে মামলাটি দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ৯ ঘণ্টা জেরা করা হল। তারপর ফের ডাকা হল।’ তাঁর কথায় স্পষ্ট বার্তা, ভবানীপুরে উপনির্বাচনের আগে তৃণমূলের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই আবার উঠে পড়ে লেগেছে বিজেপি। মমতা বলেন, ‘আমি কোনও এজেন্সিকে দোষ দিই না, ওঁনারা ওঁনাদের কাজ করছেন। অনেকেই বলেন, চাপ রয়েছে। আর এই চাপের চপ হল নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহ।’

Read More-সুন্দরবন উন্নয়ন দফতরের উদ্যোগে গোসাবায় চালু হল ওয়াটার অ্য়াম্বুলেন্স

নাম না করে শুভেন্দু অধিকারীকেও কটাক্ষ করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। বলেন, ‘ভগবানের জেষ্ঠ্যপুত্র! দুর্যোধন-দুঃশাসনের থেকেও খারাপ। হাইকোর্টের নির্দেশ, কোনও পদক্ষেপ নেওয়া যাবে না। যখন যেমন সময় হবে তখন জেরা করা হবে। তাহলে বাকিদের বেলায় এই নিয়ম আলাদা কেন?’ তিনি আরও বলেন, ‘নারদ মামলায় সুব্রত মুখোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিমের নাম আছে। অথচ আসল চোরের নাম নেই।’ এরপরই নন্দীগ্রামের নির্বাচন ও গণনা নিয়ে মন্তব্য করলেন মমতা। বললেন, ‘শুধু আমরাই জানি, কী ভাবে আমরা ভোটে লড়েছি। একদিকে সমস্ত এজেন্সি, সব শক্তির বিরুদ্ধে লড়েছি। আমার পায়ে আঘাত লেগেছিল। তাও জব্দ করতে পারেনি। চক্রান্ত করেই আমার উপরে হামলা করা হয়েছিল। এমনভাবে তৃণমূলকে ধ্বংস করার চেষ্টা হয়েছিল, ভাবলে শিউরে উঠবেন। আমি একটা জায়গায় হেরেছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here