পদ্ম ছেড়ে ঘাসফুলে রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী

0

একুশের নির্বাচনে বিজেপি হারার পর থেকেই বাংলায় বিজেপির ভেঙেই চলেছে। শুরুটা হয়েছিল কৃষ্ণনগর উত্তরের বিজেপি বিধায়ক মুকুল রায়কে দিয়ে। আর সেই ভাঙন এখনও অব্যাহত। একুশের ফলাফল ঘোষণার পর বহু বিজেপি নেতা যারা নির্বাচনের আগে তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লিখিয়েছিলেন, তাঁরা আবারও তৃণমূলে ফিরে গিয়েছেন। তবে এখনওরাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতন কিছু নেতা রয়েছেন, যারা তৃণমূলে নাম লেখাতে পারেন নি।

পদ্ম ছেড়ে ঘাসফুলে রায়গঞ্জের বিধায়ক কৃষ্ণ কল্যাণী

Read More-স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে না, ৭ টি বেসরকারি হাসপাতলকে শোকজ স্বাস্থ্য কমিশনের

অন্যদিকে একের পর এক বিজেপি বিধায়কও উন্নয়ন যজ্ঞে শামিল হতে তৃণমূলে গিয়ে নাম লিখিয়েছেন। তাঁর মধ্যে সবথেকে অন্যতম হলেন মুকুল রায়। এছাড়াও রয়েছেন বিশ্বজিত্‍ দাস, তন্ময় ঘোষ, সৌমেন রায়। এছাড়াও আসানসোলের বিজেপি সাংসদ তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়ও আচমকা রাজনীতি থেকে সন্ন্যাস কাটিয়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন।

Read More-পেগাসাস কাণ্ডে বিশেষ তদন্ত কমিটি গঠন সুপ্রিম কোর্টের

এবার আরও এক বিধায়ক তৃণমূলে যোগ দিলেন। যদিও তিনি সরাসরি বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দেন নি। তিনি মাস খানেক আগেই বিজেপির সঙ্গে সমস্ত সম্পর্ক ছিন্ন করে গেরুয়া শিবির থেকে দূরে সরে গিয়েছিলেন। আর এবার অনেকদিন রাজনীতি থেকে দূরে সরে থাকার পর আজ তৃণমূলে যোগ দিলেন রায়গঞ্জের বিধায়ক তথা প্রাক্তন বিজেপি নেতা কৃষ্ণ কল্যাণী (Krishna Kalyani)।

এদিন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাত ধরে তিনি তৃণমূলে পতাকা তুলে নেন। পার্থবাবু সাংবাদিক বৈঠকে জানান যে, দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়ের অনুমতি আর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে পরামর্শ করার পরেই কৃষ্ণ কল্যাণীকে তৃণমূলে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এদিন তিনি সাংবাদিক বৈঠক থেকে বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্বের কথা তুলে গেরুয়া শিবিরকে কটাক্ষও করেন।

Previous articleদীপাবলিতে রাজ্যে বাজি ফাটানো যাবে ২ ঘণ্টার জন্য: দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড
Next articleGoogle নিয়ে এল Android 12 আপডেট, এক নজরে দেখে নিন ফিচারগুলি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here