প্রবল জলোচ্ছ্বাসে বানভাসী দিঘা, পর্যটকদের সমুদ্রে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি

0

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হয়েছে গভীর নিম্নচাপ। তার জেরে রাজ্যের একাধিক জেলায় বৃষ্টি হচ্ছে। পাশাপাশি কৌশিকী অমাবস্যার জেরে ভরা কোটাল রয়েছে মঙ্গলবার। তার ফলেও উত্তাল হয়ে রয়েছে দিঘার সমুদ্র। সকাল থেকেই প্রবল জলোচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে সমুদ্রে। সেই কারণে পর্যটকদের সমুদ্রে যাওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। ফলে মেঘলা আবহাওয়ায় পাড় থেকেই জলোচ্ছ্বাস উপভোগ করছেন তাঁরা।

প্রবল জলোচ্ছ্বাসে বানভাসী দিঘা, পর্যটকদের সমুদ্রে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি

Read more-এবার থেকে আধার কার্ডে বাবা ও স্বামীর পরিবর্তে ‘কেয়ার অফ’, বড় সিদ্ধান্ত UIDAI-এর

বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের জেরে স্বাভাবিকভাবেই উত্তাল রয়েছে দিঘার সমুদ্র। গতকাল থেকেই জেলা শুরু হয়েছে বৃষ্টি। আজ সকালেও আকাশে সূর্যের দেখা পওয়া যায়নি। মেঘলা আবহাওয়াতেই সমুদ্রের ধারে ভিড় করেছেন পর্যটকরা।

নিম্নচাপের সঙ্গে আজ দোসর ভরা কোটাল। এই দুইয়ের জেরে ফুলে ফেঁপে উঠেছে সমুদ্র। তার জেরেই সকাল থেকে প্রবল জলোচ্ছ্বাস দেখা দিয়েছে দিঘার সমুদ্রে। সৈকতের গার্ডওয়াল টপকে জল ঢুকে পড়ে দিঘা শহরে।

সমুদ্রের জল প্রবেশ করায় ভেসে গিয়েছে দিঘার বাজার। জলমগ্ন একাধিক এলাকা। উপকূলবর্তী অনেক গ্রামেও জল ঢুকেছে বলে জানা গিয়েছে।ঢেউয়ের উচ্চতা সর্বোচ্চ প্রায় ৩০ ফুট। সমুদ্র উত্তাল থাকায় পর্যটকদের সমুদ্রে যাওয়ার উপর বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। প্রশাসন ও দিঘা থানার তরফে পর্যটকদের সতর্ক করতে মাইকিং করা হচ্ছে।

রামনগর ১ নম্বর ব্লকের বিডিও দিঘা সমুদ্র উপকূলীয় এলাকা পরিদর্শন করেন। পর্যটকদের সমুদ্র থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকার কথাও বলেছেন তিনি।

এদিকে সমুদ্র উত্তাল দেখে সকাল থেকেই সৈকতে ভিড় করেছেন পর্যটকরা। জলে নামার অনুমতি না থাকায় পাড় থেকেই উত্তাল সমুদ্রকে ক্যামেরাবন্দি করছেন তাঁরা। তবে জলে নামতে না পারায় খানিকটা অখুশি অনেকেই।তবে গার্ডওয়াল টপকে জলে নামতে না পারলেও গার্ডওয়াল পেরিয়ে আসা সমুদ্রের ঢেউতেই পা ভেজাচ্ছেন কয়েকজন পর্যটক। এভাবেই আজ সকালে সমুদ্র সৈকতে ভিড় জমান উত্‍সুক পর্যটকরা।

পর্যটকদের জলে নামতে নিষেধ করা হয়েছে প্রশাসনের তরফে। পাড়ে নজরদারি চালাচ্ছে পুলিশ। দিঘার সমুদ্রে এত বড় ঢেউ আগে কখনও দেখননি বলে জানিয়েছেন বহু পর্যটক।

সমুদ্রের জল দিঘা শহরের বেশ খানিকটা ভিতরে প্রবেশ করেছে। এমনকী, সৈকত লাগোয়া কিছু হোটেল ও রিসর্টের প্রবেশ করেছে জল। জলের পরিমাণ আরও বাড়বে বলে অনুমান করা হচ্ছে প্রশাসনের তরফে।জলোচ্ছ্বাসের ফলে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে উপকূলের গ্রামগুলিতে। চলতি বছর ইয়াসের দাপটে দিঘায় ভেঙে পড়েছিল বেশ কিছু বাঁধ। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলেন বহু মানুষ। আর তার মধ্যেই ফের একবার জলোচ্ছ্বাসে ক্ষতিগ্রস্ত উপকূলের বেশ কিছু গ্রাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here