Tuesday, May 17, 2022
Homeকলকাতাবিধ্বংসী আগুনের গ্রাসে মল্লিক বাজারের পার্ক শো সিনেমা হল, ঘটনাস্থলে দমকলের ৬...

বিধ্বংসী আগুনের গ্রাসে মল্লিক বাজারের পার্ক শো সিনেমা হল, ঘটনাস্থলে দমকলের ৬ টি ইঞ্জিন

ফের শহরে অগ্নিকাণ্ড সিনেমা হলে। মঙ্গলবার দুপুরে ভয়াবহ অগ্নিসংযোগ ঘটে মল্লিক বাজার এর বহু পুরনো এই সিনেমা হলে। হঠাত্‍ করেই দুপুরের দিকে সিনেমা হল থেকে কালো ধোঁয়া বের হতে দেখেন স্থানীয়রা। তা দেখে আতঙ্কে চেঁচামেচি জুড়ে দেয় এলাকাবাসী।

বিধ্বংসী আগুনের গ্রাসে মল্লিক বাজারের পার্ক শো সিনেমা হল, ঘটনাস্থলে দমকলের ৬ টি ইঞ্জিন

Read More-আজ থেকে রাজধানী, শতাব্দী-সহ একাধিক ট্রেনে ফের মিলবে রান্না করা খাবার

মল্লিক বাজার পার্ক শো হাউজের ওপরের তলায় এই সিনেমা হল। সেখানেই ঘটে অগ্নিসংযোগ। তবে কীভাবে এই আগুন ধরেছে তা এখনো পর্যন্ত জানা যায় নি। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছায় দমকল বাহিনী। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন তাঁরা।

এদিন দুপুরের দিকে মল্লিক বাজারের বেনিয়াপুকুর থানা এলাকায় হঠাত্‍ করেই বহু পুরনো পার্ক শো হাউস এর উপরের তলায় অগ্নিকাণ্ড ঘটে। আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায় পুরনো এই সিনেমা হলটি। আগুনের উত্‍স আদৌ কী ছিল তা এখনো পর্যন্ত জানা যায় নি। কিন্তু দমকল বাহিনী আসার আগেই দাউ দাউ করে জ্বলতে শুরু করে হলটি। খুব দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে সর্বত্র। ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয় দমকলের দুটি ইঞ্জিন। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালান তাঁরা।

দমকল বাহিনীর কর্মীরা জানান, বহু পুরনো এই পার্ক শো হাউস এর আশেপাশে বসতি এবং দোকান-বাড়ি অনেক বেশি। যার কারণে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকায় আগুন বেশি ছড়িয়ে যাওয়ার আতঙ্ক থাকে। এলাকাবাসীরা ওই একই আতঙ্কে আতঙ্কিত ছিলেন। তবে এখনো পর্যন্ত কীভাবে ওই সিনেমা হলে ভেতরেও অগ্নিসংযোগ ঘটল সে বিষয়ে তথ্যসূত্র পাননি তাঁরা। অগ্নি উত্‍সের খোঁজ করা হবে বলে জানান দমকল বাহিনীর কর্মীরা।

ইতিমধ্যে আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি। দমকলের ৬ টি ইঞ্জিন আগুন নেভানোর কাজে নিযুক্ত হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, সিনেমাহলের প্রজেক্টর রুমের পাশেই আগুন লাগে। যা থেকে আগুন ছড়িয়ে যায় গোটা সিনেমা হলের মধ্যে। কিন্তু করোনার পরিস্থিতির জন্য বহুদিন ধরেই বন্ধ ছিল সিনেমা হল। সেখানে পাওয়ার সাপ্লাই বন্ধ ছিল বলে জানা গিয়েছে। ফলে আগুন ইচ্ছা করে ধরিয়ে দেওয়া যেতে পারে বলেও অনুমান করছেন একাংশ।

দমকল বাহিনী এসে উপস্থিত হওয়ার পরই ওই সিনেমাহলের সামনে থাকা ছোট ঘুমটি গুলিকে ভেঙে সরিয়ে দেন। কারণ সেগুলির মধ্যে প্লাস্টিকের ব্যানারের মতন অনেক ধাহ্য পদার্থ ছিল। যার কারণে ঘিঞ্জি এলাকায় আগুন ছড়িয়ে যাবার সম্ভাবনা ছিল। এখনো পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চালাচ্ছেন দমকল বাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments