স্বাধীনতা দিবসে মালদায় গাড়ির সঙ্গে ডাম্পারের মুখোমুখি সংঘর্ষ, ঘটনাস্থলে মৃত ৪

0

সরকারি বোর্ড লাগানো গাড়ির সঙ্গে ডাম্পারের মুখোমুখি সংঘর্ষ। ঘটনাস্থলে মৃত্যু চারজনের। মৃতদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি বলে পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গাজলের মশালদিঘী এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে। ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবলে পড়ে দুমড়ে মুচড়ে গিয়েছে সরকারি দফতরের গাড়িটি। তিনজন প্রাপ্তবয়স্কের সঙ্গে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়েছে একটি শিশুর।

স্বাধীনতা দিবসে মালদায় গাড়ির সঙ্গে ডাম্পারের মুখোমুখি সংঘর্ষ, ঘটনাস্থলে মৃত ৪

Read More-৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসে কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল ঢাকা পড়ল সাড়ে সাত হাজার বর্গফুটের তেরাঙ্গায়

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ ছুটির দিনে রায়গঞ্জ থেকে সরকারি গাড়িতে করে মালদার দিকে ফিরছিলেন একটি পরিবার। ওই গাড়ীর মধ্যে ছিলেন চার সদস্য। জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের দুটি রাস্তা। শিলিগুড়ি থেকে মালদা গামী রাস্তাটি বন্ধ থাকে। যার ফলে ওই সরকারি গাড়িটি রং রুটে ঢুকে যায়। সেই সময় উল্টো দিক থেকে আসা একটি ডাম্পারের সঙ্গে সরকারি গাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। ঘটনাস্থলে চালকসহ ৩ জনের মৃত্যু হয়। একজন মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে মৃত্যু হয়। খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে গাজল থানার পুলিশ পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। ঘটনার জেরে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক বেশ কিছুক্ষণের জন্য বন্ধ থাকে।

Read More-এবার তৃণমূল ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবসেও ভারচুয়াল, প্রধান বক্তা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

স্থানীয় বাসিন্দা আনন্দ পন্ডিত জানিয়েছেন, ‘এদিন ওই সরকারি গাড়িটি রায়গঞ্জের দিক থেকে মালদার দিকে আসছিল। গাড়িতে চালকসহ তিনজন ছিল তার মধ্যে একজন শিশু ও মহিলা ছিল। আমরা দুর্ঘটনার শব্দ শুনে জাতীয় সড়কে বেরিয়ে আসি। দেখতে পাই গাড়ির মধ্যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে আমরা মহিলাটিকে নিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণেই এই ধরনের মর্মান্তিক পথোদুর্ঘটনা ঘটেছে। কারণ জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ রাস্তার একদিক বন্ধ রেখেছে। তাদের উচিত ছিল রাস্তার মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া। আর সেই ব্যবস্থা না নেওয়ার ফলেই এই ধরনের বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটেছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here