১১০০ কোটি টাকা দূর্নীতি, কোচবিহার সীমান্তে আটক ঢাকার পুলিশ আধিকারিক

0

বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে নেপাল যাওয়া ছক ছিল প্রতারণার মামলা অভিযুক্ত বাংলাদেশি এক পুলিশ আধিকারিক। ঢাকা পুলিশের সেই আধিকারিককেই কোচবিহার সীমান্তে আটক করল বিএসএফ। ধৃত পুলিশ কর্তার থেকে মিলেছে ৪টি ডেবিট কার্ড, প্রচুর ওষুধ। প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়, এক অনলাইন বিপণী সংস্থা খুলে ১১০০ কোটি টাকার প্রতারণার অভিযোগ উঠেছে ধৃতের বিরুদ্ধে। শেখ সোহেল রানা নামক সেই পুলিশ আধিকারিককে মেখলিগঞ্জ থানার পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে বিএসএফ জওয়ানরা।

১১০০ কোটি টাকা দূর্নীতি, কোচবিহার সীমান্তে আটক ঢাকার পুলিশ আধিকারিক

Read More-দেহরক্ষী মৃত্যু মামলায় রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে তলব সিআইডির

কয়েকদিন আগেই ধৃত সোহেল চিন ও থাইল্যান্ড ঘুরে এসেছেন বলে জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। কোনও জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সোহেলের যোগ রয়েছে কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে পুলিশের তরফে। পুলিশের তত্ত্বাবধানে মেখলিগঞ্জ হাসপাতালে শারীরিক পরীক্ষা করা হয় বাংলাদেশি এই পুলিশ আধিকারিকের।

Read More-এবার থেকে ফেরিঘাটেও মেট্রোর প্রযুক্তি, চালু হচ্ছে স্মার্টকার্ড আর টোকেন

তদন্তকারীরা ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানতে পেরেছে, ধৃত ঢাকায় বনানী থানার পরিদর্শক পদে কর্মরত ছিলেন। ধৃত বাংলাদেশ থেকে ভারত হয়ে নেপালে পালানোর ছক কষেছিলেন। ধৃত সোহেল রানা বাংলাদেশের ই-অরেঞ্জ দূর্নীতির সঙ্গে জড়িত। এই সংস্থার মাধ্যমে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে ১১০০ কোটি টাকা দূর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। ই-অরেঞ্জ নামের অনলাইন প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশে মোটরসাইকেল, স্মার্টফোন সহ বিভিন্ন সামগ্রী বিক্রি করত।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here