OTT এবং সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহারে লাগাম দিতে নতুন গাইডলাইন প্রকাশ কেন্দ্রের

0

বৃহস্পতিবার ভারত সরকার সমস্ত নতুন তথ্য প্রযুক্তি বিধি ২০২১ ঘোষণা করেছে। যার মধ্যে মধ্যস্থতাকারী নির্দেশিকা এবং একটি ডিজিটাল মিডিয়া নীতির কোড অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। যদিও এই নতুন নিয়মগুলি বাস্তবায়িত হতে কিছুটা সময় লাগবে, তবে সরকার এইসব মেসেজিং প্ল্যাটফর্মগুলির বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান গ্রহণ করেছে। এর অর্থ হল হোয়াটসঅ্যাপ, সিগন্যাল, টেলিগ্রাম এবং অন্যান্য যে প্ল্যাটফর্মগুলি মেসেজর জন্য এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন ব্যবহার করে তাদের সরকারের নতুন নিয়ম মেনে চলতে হবে।
রবিশঙ্কর প্রসাদ ঘোষণা বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে অফিসার মোতায়েন করতে হবে। অভিযোগ পাওয়ার ২৪ ঘন্টার মধ্যে কোনও আপত্তিজনক পোস্ট সরিয়ে ফেলতে হবে। প্ল্যাটফর্মগুলিকে তাদের নোডাল অফিসার, ভারতে রেসিডেন্ট গ্রেভেন অফিসার নিয়োগ করতে হবে। অভিযোগের ভিত্তিতে মোট কতগুলি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, তার রিপোর্ট কেন্দ্রীয় সরকারকে দিতে হবে প্রতি মাসে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব প্রথমে কে ছড়াচ্ছে, তার বিষয়ে তথ্য দিতে হবে। কারণ, একজনের গুজবের পোস্ট থেকে তা ভাইরাল হয়ে যায়। ভারতের সার্বভৌমত্ব, সুরক্ষা, বৈদেশিক সম্পর্ক, ধর্ষণের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ ওটিটি ও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত বিষয়ের কন্টেন্ট নিয়ে বেশকিছু নির্দেশিকা জারি করলেন। এবার থেকে সরকারের এই নির্দেশিকা মান্য করেই, ওটিটি ও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করতে হবে।

সোশ্যাল মিডিয়া জন্য গাইডলাইন

১. দেশে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীর সংখ্যা কয়েক কোটি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহারের বিষয়ে এবং ব্যবহারকারীরা তাদের অভিযোগ নিষ্পত্তি করণের জন্য একটি ফোরাম দেওয়া হবে।
২. কোনও আদালত বা সরকারি প্রতিষ্ঠান যদি আপত্তিজনক, ভুল টুইট বা বার্তার জন্য প্রথম প্রবর্তক সম্পর্কে তথ্য জিজ্ঞাসা করে তাহলে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মটিকে এই তথ্য দিতে হবে।
৩. ভারতের অখণ্ডতা, ঐক্য, সুরক্ষা, সামাজিক ব্যবস্থাকে অপমান করা হচ্ছে এমন বিষয়, ধর্ষণ এবং যৌন শোষণ সম্পর্কিত বিষয়গুলিতে এই ব্যবস্থা প্রযোজ্য হবে।
৪. বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিতে ব্যবহারকারীর পরিসংখ্যান দেখানো হবে। এই প্ল্যাটফর্মগুলিকে অভিযোগ সমাধানের জন্য ব্যবস্থা তৈরি করতে হবে। এর জন্য একজন অফিসার নিয়োগ করতে হবে এবং তার নামও উল্লেখ করতে হবে।
৫. এই অফিসারকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে অভিযোগ দায়ের করতে হবে এবং ১৫ দিনের মধ্যে এটি নিষ্পত্তি করতে হবে।
৬. ব্যবহারকারীর প্রতি শ্রদ্ধা, বিশেষত মহিলাদের ক্ষেত্রে, যদি আপত্তিজনক ছবি পোস্ট করা হয়, তবে অভিযোগ পাওয়ার 24 ঘন্টার মধ্যে সামগ্রীটি অপসারণ করতে হবে।
৭. এই সংস্থাগুলিকে প্রতি মাসে কতগুলি অভিযোগ এসেছে এবং সেগুলি নিয়ে কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সে সম্পর্কে প্রতিবেদন জমা দিতে হবে।
৮. যদি কোনও সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীর বিষয়বস্তু অপসারণ করতে হয়,তবে তাকে এটি করার কারণ ব্যাখ্যা করতে হবে এবং তার পক্ষও শুনতে হবে।
৯. সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে ব্যবহারকারীদের নিবন্ধকরণের জন্য স্বেচ্ছাসেবী যাচাইকরণ ব্যবস্থা থাকা উচিত।

ওটিটি এবং ডিজিটাল নিউজের জন্য গাইডলাইনস

১. ওটিটি এবং ডিজিটাল সংবাদগুলির জন্য ৩ টি পর্যায়ের প্রক্রিয়া থাকবে। নিবন্ধনের কোনও বাধ্যবাধকতা না থাকলেও তথ্য অবশ্যই দিতে হবে।
২. অভিযোগের সমাধানের জন্য একটি ব্যবস্থা তৈরি করতে হবে। তাদের স্ব-নিয়ন্ত্রক সংস্থা হতে হবে। এটির নেতৃত্ব দেবেন সুপ্রিম কোর্ট বা হাইকোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারক বা সমপর্যায়ের কেউ।
৩. যদি কোনও বিষয়ে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়ার প্রয়োজন হয়, তবে সরকারী পর্যায়ে এমন একটি ব্যবস্থা তৈরি করা হবে, যা এ জাতীয় মামলাগুলি পরিচালনা করতে পারে।
৪. চলচ্চিত্রের মতো, ওটিটি প্ল্যাটফর্মগুলিতেও প্রোগ্রাম কোডটি অনুসরণ করতে হয়। বয়সের দিক থেকে বিষয়বস্তু সম্পর্কে শ্রেণিবদ্ধকরণ করতে হবে অর্থাত্‍ কোন সামগ্রীটি কোন বয়সের জন্য উপযুক্ত এটি ১৩+, ১৬+ এবং A বিভাগগুলিতে বিভক্ত হতে হবে।
৫. অভিভাবক নিয়ন্ত্রিত একটি সিস্টেম হওয়া উচিত, যাতে অভিভাবকরা তাদের বাচ্চাদের জন্য অনুপযুক্ত জাতীয় সামগ্রী আটকাতে পারেন,যা বাচ্চাদের ক্ষেত্রে সঠিক নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here