কলকাতা হাই কোর্টে নিযুক্ত হতে চলেছেন ৫ অতিরিক্ত বিচারপতি, নির্দেশিকায় সই রাষ্ট্রপতির

0

কলকাতা হাই কোর্টে নিযুক্ত হতে চলেছেন পাঁচ জন অতিরিক্ত বিচারপতি। কয়েকদিন আগেই সংসদে এই বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন আইনজীবী তথা তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপরই কলকাতা হাই কোর্টে পাঁচ জন অতিরিক্ত বিচারপতি নিয়োগে সায় দিল কেন্দ্র। এই বিষয়ে আইন মন্ত্রক একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছে, ভারতীয় সংবিধানের ২২৪ ধারা অনুযায়ী কেসং ডুমা ভুটিয়া, রবীন্দ্রনাথ সামন্ত, সুগত মজুমদার , বিভাস পট্টনায়ক এবং আনন্দকুমার মুখোপাধ্যায়কে কলকাতা হাই কোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিযুক্ত করলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

কলকাতা হাই কোর্টে নিযুক্ত হতে চলেছেন ৫ অতিরিক্ত বিচারপতি, নির্দেশিকায় সই রাষ্ট্রপতির

Read More-কাবুল বিমানবন্দরে আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে নিহত বেড়ে ৯০, জখম দেড়শোর বেশি

কলকাতা হাইকোর্টে মোট বিচারপতি পদের সংখ্যা ৭২। কিন্তু বর্তমানে বিচারপতি পদে কলকাতা হাই কোর্টে কর্মরত রয়েছেন মাত্র ৩১ জন। করোনা পরিস্থিতিতে এমনিতেই বিচার প্রক্রিয়ার উপর প্রভাব পড়েছে বিস্তর। তার উপর বিচারপতি কম থাকায় বিচার প্রক্রিয়ায় ক্রমাগত দীর্ঘায়িত হচ্ছিল। নতুন পাঁচ অতিরিক্ত বিচারপতি নিযুক্ত হওয়ায় সাধারণ ন্যায় প্রার্থীদের সমস্যা কিছুটা হলেও সুরাহা হবে বলে মনে করছেন আইনজীবীরা। সুগত মজুমদার এবং বিভাস পট্টনায়ককে দুই বছরের জন্য, কেসং ডোমা ভুটিয়াকে ৯ মাস, আনন্দকুমার মুখোপাধ্যায়কে এক বছর ও রবীন্দ্রনাথ সামন্তকে ২২ মাসের জন্য কলকাতা হাই কোর্টের অতিরিক্ত বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ করল কেন্দ্রের আইন মন্ত্রক।

এর আগে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে সুপ্রিম কোর্ট কলেজিয়াম মোট ৮ জনের নাম প্রস্তাব করেছিল কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি হিসেবে। ওই আটজন হলেন রবীন্দ্রনাথ সামন্ত, সৌগত মজুমদার, অনন্যা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাই চট্টোপাধ্যায়, বিভাস পট্টনায়ক, শুভেন্দু সামন্ত, আনন্দকুমার মুখোপাধ্যায় ও কেসাং দোমা ভুটিয়া। এই নামগুলির মধ্যে থেকে বাদ গেলেন তিনজন। এর আগে গতবছর কলকাতা হাই কোর্টে কর্মরত অবস্থায় মারা যান বিচারপতি আশিস কুমার চক্রবর্তী। জলপাইগুড়ি সার্কিট বেঞ্চে গিয়ে হঠাৎ করে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। তার আগে লকডাউন চলাকালীন মারা যান বিচারপতি প্রতীক প্রকাশ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতে আরও চাপ বাড়ে বাকি কর্মরত বিচারপতিদের উপর। তবে নয়া নিযুক্ত বিচারপতিদের কারণে কিছুটা স্বস্তি পাবেন বাকি বিচারপতিরা। পাশাপাশি বিচার ব্যবস্থাও কিছুটা দ্রুত কাজ করতে সক্ষম হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here