অবশেষে দিল্লি থেকে গ্রেপ্তার মঙ্গলকোটের তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি খুনের মূল চক্রী

0

অবশেষে দিল্লি থেকে গ্রেপ্তার মঙ্গলকোটের তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি খুনের মূল চক্রী। শেখ রাজুকে গ্রেপ্তার করল সিআইডি। জানা গিয়েছে, তৃণমূল নেতা অসীম দাসকে খুনের জন্য একাধিক সুপারি কিলারকে টাকা দিয়েছিল এই রাজু।

অবশেষে দিল্লি থেকে গ্রেপ্তার মঙ্গলকোটের তৃণমূল অঞ্চল সভাপতি খুনের মূল চক্রী

Read More-সারাদিন থাকবে একই ভাড়া, কলকাতার পথে নামল নয়া অ্যাপ ক্যাব ‘‌RYDE’‌

গত ১২ জুলাই কাশেমনগর থেকে বাইকে ফিরছিলেন তৃণমূল নেতা অসীম দাপ। সেখানেই তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুষ্কৃতীরা। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিত্‍সকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এরপর ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ‘সিট’ গঠন করা হয়। গ্রেপ্তার করা হয় দু’জনকে। এরপরে এই ঘটনার তদন্তভার সিআইডির হাতে তুলে দেয় রাজ্যের প্রশাসন। কিন্তু তদন্তের শুরুতেই শেখ রাজুর ওপর নজর পড়ে তদন্তকারীদের। কিন্তু কোনও তথ্যপ্রমাণ না আসায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হচ্ছিল না। অবশেষে কিছু তথ্যপ্রমাণ মেলায় দিল্লি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করল সিআইডি। এবার শেখ রাজুকে জিজ্ঞাসাবাদ করে গোটা বিষয়টি স্পষ্ট করতে চাইছেন তদন্তকারী অফিসারেরা।

Read More-ইভটিজিংয়ের অভিযোগ, কলকাতায় দরজা ভেঙে গ্রেফতার বিজেপি নেতা

কিন্তু হঠাত্‍ করে কেন খুন করলেন রাজু? কে এই ব্যক্তি? জানা গিয়েছে, বীরভূমের নানুর বাড়ি শেখ রাজুর। পূর্ব বর্ধমানের মঙ্গলকোটের মল্লিকপুরে তার শ্বশুরবাড়ি। গত কয়েক বছর ধরে সেখানেই ছিল রাজু। প্রথমে নদী থেকে বালি তোলার যন্ত্র ভাড়া দিতে সে। কিন্তু এরপরই অবৈধ বালিঘাট চালানো শুরু করে এই ব্যক্তি। প্রচুর পয়সার মালিক হয়ে যায় সে। আর এই অবৈধ বালি ব্যবসায় বাধা হয়ে দাড়িয়ে ছিলেন অসীম দাস। সেই সঙ্গে অঞ্চল সভাপতি পদের দিকেও নজর ছিল ধৃত রাজুর। তার জেরেই খুন বলে অনুমান পুলিশের। এ বিষয়ে মঙ্গলকোটের বিধায়ক অপূর্ব চৌধুরী জানিয়েছেন, ‘আমাদের দলের সঙ্গে শেখ রাজুর কোনও সম্পর্ক ছিল না। অবিলম্বে তার শাস্তির দাবি করছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here