এবার থেকে আধার কার্ডে বাবা ও স্বামীর পরিবর্তে ‘কেয়ার অফ’, বড় সিদ্ধান্ত UIDAI-এর

0

এবার আর আধার কার্ডে থাকবে না বাবা বা স্বামীর নাম। পরিবর্তে ‘কেয়ার অফ’ লেখা থাকবে। সম্প্রতি ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অফ ইন্ডিয়াকে (ইউআইডিএআই) উদ্ধৃত করে কয়েকটি প্রতিবেদনে একথা জানানো হয়েছে।

এবার থেকে আধার কার্ডে বাবা ও স্বামীর পরিবর্তে ‘কেয়ার অফ’, বড় সিদ্ধান্ত UIDAI-এর

Read More-কসবা ভুয়ো ভ্যাকসিনকাণ্ডে এবার ইডির জেরার মুখে পড়তে চলেছেন মূল অভিযুক্ত দেবাঞ্জন

এতদিন কারও আধার কার্ডে বাবা বা স্বামীর নাম লেখা থাকত। ইউআইডিএআইয়ের তরফে জানানো হয়েছে, শুধুমাত্র পরিচয়পত্র হিসেবে কার্ড ব্যবহার করা হবে। এবার থেকে কোনও কার্ডের মাধ্যমে কোনও সম্পর্ক স্থির করা হবে না। কার্ডে দেওয়া হবে না বাবা বা স্বামীর নাম। এক ইউআইডিএআই আধিকারিক জানান, এবার থেকে বাবা ও স্বামীর পরিবর্তে ‘কেয়ার অফ’ লেখা থাকবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শুধুমাত্র নিজের নাম এবং ঠিকানা দিয়ে আধার কার্ড আপডেট করা যাবে।

আধার কার্ড ডাউনলোড থেকে ঠিকানা পরিবর্তন – বাড়িতে বসেই মিলবে বিভিন্ন পরিষেবা।সেজন্য ‘এমআধার’ অ্যাপ বা mAadhaar অ্যাপে চালু করা হয়েছে। ইউআইডিএআইয়ের তরফে জানানো হয়েছে, নিজের পকেটেই আধার কার্ড রাখার সুবিধা করে দেয় ‘এমআধার’ অ্যাপ। অর্থাৎ সেই অ্যাপের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় কাজ করা হবে। সঙ্গে করে আধার কার্ডের হার্ডকপি রাখতে হবে না।

একনজরে দেখে নিন ‘এমআধার’ অ্যাপের মাধ্যমে কী কী সুবিধা মিলবে?

১) ডাউনলোড করা যাবে আধার। পুনরায় আধার কার্ডের কপি করতে দেওয়া যাবে। হারিয়ে যাওয়া আধার কার্ডও ডাউনলোড করা যাবে।

২) অফলাইন মোডেও আধার দেখতে বা দেখাতে পারবেন। যা পরিচয়পত্র দেখানোর সময় কাজে লাগবে।

৩) নথি দিয়ে বা নথি ছাড়া আধারের ঠিকানা আপডেট করা।

৪) একটি মোবাইলের পরিবারের সদস্যদের (সর্বাধিক পাঁচজন) আধার রেখে দেওয়া বা নিয়ন্ত্রণ করা।

৫) বিভিন্ন পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থাকে কাগজবিহীন ই-কেওয়াইসি বা কিআউ কোড দেওয়া।

৬) নিজের আধার বা বায়োমেট্রিক লক করে আধার কার্ড সুরক্ষিত রাখা।

৭) ভিআইডি জেনারেট করা বা পুনরুদ্ধার করা। যা আধার কার্ড সংক্রান্ত পরিষেবা পাওয়ার জন্য আধারের পরিবর্তে ব্যবহার করতে পারেন (যাঁরা নিজেদের আধারের তথ্য অন্যকে দিতে চান না বা যাঁরা নিজেদের আধার লক করে দিয়েছেন, তাঁদের জন্য)।

৮) অফলাইন মোডে আধার এসএমএস পরিষেবা ব্যবহার করা।

৯) আধারের জন্য নথিভুক্ত হওয়ার পর বা আধারের তথ্য আপডেটের পর সেই সংক্রান্ত তথ্য জানা যাবে।

১০) আধার সেবা কেন্দ্রে যাওয়ার জন্য সময় নির্ধারণ করা। অর্থাৎ অ্যাপয়েটমেন্ট নেওয়া।

১১) সফলভাবে আপডেট সম্পূর্ণ হলে নিজের আধার প্রোফাইলে সাম্প্রতিক তথ্য মিলবে।

১২) ইউআইডিএআই সাইট থেকে অনলাইনে আধার পরিষেবার জন্য এসএমএসের পরিবর্তে ওটিপি ব্যবহার করা যেতে পারে।

১৩) নিকটতম আধার নথিভুক্তির কেন্দ্র চিহ্নিত করা যাবে।

১৪) অ্যাপেই নিজেদের আধার কার্ড ডাউনলোড করে রাখতে পারবেন ‘এমআধার’ ব্যবহারকারীরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here